এনার্জি ও আইসিটি খাতে উরুগুয়ের বিনিয়োগ আহ্বান রাষ্ট্রপতির

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এনার্জি, আইসিটি এবং অবকাঠামোসহ বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগ করতে উরুগুয়ের বিনিয়োগকারীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
স্থানীয় সময় সোমবার দুপুরে উরুগুয়ের মন্টিভিডিওর প্রেসিডেন্সিয়াল প্যালেসে উরুগুয়ের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠককালে রাষ্ট্রপতি এ আহ্বান জানান।
বাংলাদেশে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য আকর্ষণীয় সুযোগ সুবিধাসহ ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে উল্লেখ করে বৈঠকে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেন, এসব অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা বিনিয়োগ করতে পারে।
রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন ব্রিফিংয়ে জানান, বৈঠকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি এবং উরুগুয়ের প্রেসিডেন্ট দ্বিপাক্ষিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।
রাষ্ট্রপতি বলেন, বাংলাদেশ ইতোমধ্যে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে সামিল হয়েছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশে তৈরি পোশাক, ঔষধ এবং সিরামিকসহ আন্তর্জাতিক মানের বিভিন্ন পণ্য উৎপাদিত হয়।
রাষ্ট্রপতি দু’দেশের বিনিয়োগ সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে উচ্চ পর্যায়ের সফর বিনিময়ের উপর গুরুত্বারোপ করেন।
তিনি দু’দেশের জনগণের মধ্যে সম্পর্ক বাড়াতে সংসদ সদস্যদের বা জনপ্রতিনিধিদের পারস্পরিক সফর বাড়ানোর ওপর জোর দেন। কূটনীতিক এবং অফিসিয়াল পাসপোর্টধারীদের ভিসা সহজীকরণের কথাও উল্লেখ করেন রাষ্ট্রপতি।
রাষ্ট্রপতি বলেন, বাংলাদেশে প্রচুর পরিমাণে প্রশিক্ষিত জনশক্তি রয়েছে যারা উরুগুয়ের উন্নয়নে ইতিবাচক অবদান রাখতে পারে। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ উরুগুয়ের প্রেসিডেন্টকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান।
রাষ্ট্রপতি মো আবদুল হামিদ উরুগুয়ের নতুন প্রেসিডেন্টকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক ও বহুপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নকে অগ্রাধিকার দেয়।
উরুগুয়ের প্রেসিডেন্ট লুই পো তার শপথ অনুষ্ঠানে যোগদানের জন্য রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বাংলাদেশে উরুগুয়ের বিনিয়োগের ব্যাপারে ইতিবাচক মনোভাব প্রকাশ করেন।
রোহিঙ্গা ইস্যুতে উরুগুয়ের প্রেসিডেন্ট তার দেশের অব্যাহত সহযোগিতার কথা পুনর্ব্যক্ত করেন। তিনি আশা করেন ভবিষ্যতে বাংলাদেশের সাথে উরুগুয়ের সম্পর্ক বিভিন্ন ক্ষেত্রে আরো সম্প্রসারিত হবে।
দ্বিপাক্ষিক ও আঞ্চলিক বাণিজ্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে বাংলাদেশ ও দক্ষিণ আমেরিকান বাণিজ্য সংস্থা মেরকোসুর-এর মধ্যে মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন উরুগুয়ের প্রেসিডেন্ট লুই পো। দক্ষিণ আমেরিকার চারটি দেশ ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, প্যারাগুয়ে ও উরুগুয়ে এই সংস্থার স্থায়ী সদস্য।
এসময় উরুগুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. জুলফিকার রহমান এবং রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব সম্পদ বড়ুয়া উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ উরুগুয়ের রাজধানী মন্টিভিডিওতে পার্লামেন্ট ভবনে অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্টের কমান্ড হস্তান্তর অনুষ্ঠানে যোগ দেন। ন্যাশনাল পার্টির (এনপি) নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট লুইস আলবার্তো লাকাল পু রোববার ২০২০-২০২৫ মেয়াদের জন্য শপথ গ্রহন করেন।
পেশায় রাজনীতিক ও সাবেক প্রেসিডেন্টের পুত্র লুইস আলবার্তো লাকাল পু বামপন্থী ব্রড ফ্রন্টের (এফএ) ১৫ বছরের শাসনের অবসান ঘাটিয়ে উরুগুয়ের প্রশাসনের প্রধান হিসেবে শপথ নিয়েছেন।
বাংলাদেশ-সহ বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধান এবং প্রতিনিধিরা শপথ অনুষ্ঠানে যোগদান করেন।
রাষ্ট্রপতি হামিদ ১১ দিনের সফরে গত বুধবার সকালে লন্ডন এবং উরুগুয়ের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেন।