সচিবালয়ে ২৫ শতাংশ কর্মকর্তা-কর্মচারী উপস্থিত থাকবেন

বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে সচিবালয়ে প্রতিটি মন্ত্রণালয় ও বিভাগে একসঙ্গে সর্বোচ্চ ২৫ শতাংশ কর্মকর্তা কর্মচারী নিয়ে অফিসের কাজ চলবে।
জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন আজ বিকেলে বাসসকে বলেন, ‘এই নির্দেশনা শুধু সচিবালয়ের জন্য। কর্মকর্তা-কর্মচারীরা যেন কোনোভাবেই সংক্রমিত না হন, সেটি আমাদের প্রথম লক্ষ্য। সেজন্য ন্যূনতম সংখ্যক কর্মকর্তা নিয়ে আমরা প্রয়োজনীয় কাজগুলো করব।’
তিনি বলেন, যারা অফিসে আসবেন তাদের পাশাপাশি আরও ২৫ শতাংশ কর্মকর্তা কর্মচারী অনলাইনে কাজে যুক্ত থাকবেন । এভাবে পালাক্রমে অফিসের কাজ চলবে। আর দেশের অন্যান্য অফিসগুলোতে প্রয়োজন অনুযায়ী কর্মকর্তা কর্মচারী নিয়ে কাজ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
সে অনুযায়ী প্রতিটি মন্ত্রণালয় ও বিভাগকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও জনপ্রশাসন থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা একটি বিশেষ পরিস্থিতি অতিক্রম করছি। যে মুহূর্তে অফিস সময়সূচির কোন বাধ্যবাধকতা নেই। সকাল ৯টায় অফিসে এসে কেউ যদি ২ ঘণ্টায় কাজ শেষ করতে পারেন, তাহলে কাজ শেষেই তিনি চলে যাবেন। বিকাল ৫টায় অফিস ছুটির জন্য তাকে অপেক্ষা করতে হবে না। আবার কেউ যদি মনে করেন, বাসায় থেকে অনলাইনে তিনি কাজটা করতে পারবেন, তাহলে তাকে অযথা অফিসে আসার প্রয়োজন নেই। সেই অনুযায়ী প্রতিটি মন্ত্রণালয় ও বিভাগ রোস্টার তৈরি করবেন।
তিনি বলেন, যাদের অফিসে কাজ নেই, তাদের ঝুঁকি নিয়ে অযথা অফিসে আসার দরকার নেই। অনেক কর্মকর্তা ‘অযথাই’ অফিসে চলে আসছেন। সেক্ষেত্রে সবার জন্যই ঝুঁকি তৈরি হচ্ছে।
ফরহাদ হোসেন বলেন, ‘করোনা মহামারী চলছে, যথেষ্ট সতকর্তা অবলম্বন করে আমাদের কাজ করতে হবে। আমরা চাই না কোন কর্মকর্তা অপ্রয়োজনে অফিসে আসুক। কর্মকর্তাদের সুরক্ষার জন্য আমরা এই ব্যবস্থা করছি। একসাথে আমরা ২৫ শতাংশের বেশি মানুষ কর্মস্থলে রাখতে চাচ্ছি না। যারা অসুস্থ তারা একেবারেই অফিসে আসবেন না।’