একজন প্রতিভাবান সফল বধির মানুষ “ইফতু আহমেদ” এর জীবনী

কানে শুনতে না পেরেও একজন সর্বাধিক শিক্ষিত ও সফল মানুষ ইফতু আহমেদ, আজ তাহার  জীবনের সফলতার গল্প শুনবো।

শুনা ছাড়া বধির মানুষ জীবনে সব কিছু করতে পারে, পারে সাফল্যের সর্বাধিক শিখরে পৌছাতে ইফতু আহমেদ তাহার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। ইফতু আহমেদ এর নিজের লেখা তাহার সফল জীবনের গল্প তুলে ধরা হল।

শুনা ছাড়া বধির মানুষ সব কিছু করতে পারে লিখেছেন ইফতু আহমেদ

শিক্ষা জীবন

বি.এ. অনার্স, এম.এ. ইতিহাস (ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়)

সম্মানসূচক পিএইচ.ডি খেলাধূলা (বিশ্ব উন্নয়ন সংসদ, ভারত)

এ.এ.এস. ডাটা প্রসিং (ওয়াবনসি কমিউনিটি কলেজ, ইলিনয়, ইউ.এস.এ.)

আমেরিকান সাইন ল্যাংগুয়েজ (ইলিনয়, ইউ.এস.এ.)

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট, জাতীয় এথলেটিক্স ও জাতীয় যুব ফুটবল

চ্যাম্প কলেজ ও ডেফ স্পোর্টস (নর্দান ইলিনয় ইউনিভার্সিটি, ইউ.এস.এ.)

এবং লেখক অরোরা, বৃহত্তর শিকাগোল্যান্ড ইলিনয়, ইউ.এস.এ.

১৯৭৭ সালে প্লিনি দ্য এল্ডার (২৩ – ৭৯), রোমান লেখক তাঁর জাতীয় ইতিহাস গ্রন্থে “কুইনটাস পেডিয়াস” নামক একজন রোমান চিত্রশিল্পী ও প্রথম বধির ব্যক্তির নাম ইতিহাসে উল্লেখ করেন।

লুডউইগ ভ্যান বিথোভেন (১৭৭০-১৮২৭), জার্মান সুরকার যিনি বিশ্বের অন্যতম সেরা সুরকার ছিলেন। তাঁর কাজগুলি ক্লাসিকাল ইউরোপীয় সংগীতকে অমর করে তুলেছে। ২০ বছর বয়সে, তিনি তার শ্রবণশক্তি হারাতে শুরু করেছিলেন এবং সম্পূর্ণ বধির হয়েছিলেন। তাঁর বধিরতা তাঁর রচনায় বাধা দান করেনি। বধিরতার পরেও তিনি তাঁর বেশিরভাগ সেরা সংগীত রচনা করেছিলেন।

১৯২৩ সালে বিথোভেন যে ইউরোপীয় সংগীত (European Anthem) রচনা করেছিলেন, তা ১৯৭২ সালে কাউন্সিল অফ ইউরোপ অবলম্বন করে এবং ১৯৮৫ সালে ইউরোপীয় নেতৃবৃন্দ একে ইউরোপীয় ইউনিয়নের দাপ্তরিক সংগীত (Official Anthem) হিসাবে গ্রহণ করে।

হেলেন অ্যাডামস কেলার (১৮৮০-১৯৬৮), একজন আমেরিকান লেখক, রাজনৈতিক কর্মী এবং বক্তা পুরো দৃষ্টিশক্তি ও শ্রবণ সহ জন্মগ্রহণ করেছিলেন। যখন তিনি মাত্র ১৯ মাসের শিশু ,তখন তিনি এক জ্বরে আক্রান্ত হয়েছিলেন, যা তার অন্ধ ও বধিরতাকে ধরে রাখে। তিনি প্রথম বধির-অন্ধ ব্যক্তি, যিনি র্যাডক্লিফ কলেজ থেকে Bachelor of Arts অর্জন করেছিলেন।

ইতিহাসে তিন বধির নোবেল বিজয়ী চার্লস জুলস হেনরি নিকোল (১৮৬৬-১৯৩৬), স্যার চার্লস স্কট শেরিংটন (১৮৫৭-১৯৫২) এবং স্যার জন ওয়ার্কাপ কর্নফোর্থ (১৯১৭-২০১৩) শ্রেষ্ঠত্বের সেরা উদাহরণ ছিলেন।

সুতরাং বধিরতা আমাদের মহত্ত্ব থেকে পিছনে রাখতে পারে না। এটি একটি অভূতপূর্ব সত্য।

যদিও আমি আমার বধিরতার কারণে হিয়ারিং বিশ্বের সমতুল্য নই, পরম করুণাময় আল্লাহ পাক যিনি আমাকে আমার কঠোর পরিশ্রম ও অতিরিক্ত মাইল যাত্রায় সফল হতে সক্ষম করেছেন।

এখানে বাংলাদেশ-আমেরিকান ইফতু আহমেদের গল্প, যিনি পাঁচ বছর বয়সে হামে বধির হয়েছিলেন এবং শিক্ষা, খেলাধূলা, লেখালেখি এবং কর্মক্ষেত্রে সফলকাম হয়েছিলেন।

জন্ম

১৯৫৩ সালের ১০ নভেম্বর ইফতু আহমেদ ময়মনসিংহ শহরে জন্মগ্রহণ করেছিলেন, যা এককালে বাংলাদেশের বৃহত্তম জেলা, ব্রহ্মপুত্র, প্রাচীন ব্রহ্মপুত্রের হ্রদ, জঙ্গল এবং মহিষের শিং হিসাবে পরিচিত ছিল। বর্তমানে ময়মনসিংহ বাংলাদেশের একটি বিভাগ শহর।

শিক্ষা

১৯৮৬-৮৯ ওয়াউবনসি কমিউনিটি কলেজ, সুগার গ্রোভ, ইলিনয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।
ডেটা প্রসেসিং-এর এ.এ.এস. ডিগ্রী।
জি.পি.এ. ৩.৩৭, ৪.০ এর স্কেলে।

১৯৭৫-৭৬ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়,ঢাকা, বাংলাদেশ।
ইতিহাসের এম.এ. ডিগ্রী।
দ্বিতীয় শ্রেণীতে প্রথম স্থান।

১৯৭২-৭৫ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা, বাংলাদেশ।
ইতিহাসের বি. এ. (অনার্স) ডিগ্রী।
দ্বিতীয় শ্রেণীতে একাদশ স্থান।

সম্মানসূচক পিএইচ.ডি.

১৯৮৪ সালে বিশ্ব উন্নয়ন সংসদ, নয়াদিল্লি, ভারত।
সম্মানসূচক পিএইচ.ডি. ডিগ্রী খেলাধূলাসহ সার্বিক শিক্ষার উন্নয়ন এবং সংসদ রত্ন।

প্রশিক্ষণ (Training)

১৯৮৪-৮৫ পার্কল্যান্ড কলেজ , চ্যাম্পেইন, ইলিনয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইলিনয় রাজ্য পুনর্বাসন পরিষেবা বিভাগ থেকে আমেরিকান সাইন ল্যাঙ্গুয়েজ প্রশিক্ষিত।

একাডেমিক সাফল্যসমূহ

১৯৮৬-৮৯ জাতীয় ডীন লিস্ট, হু’স হু আমেরিকান কলেজ এবং ট্যালেন্ট রোস্টার।

১৯৮০-৮১ ময়মনসিংহে অনুষ্ঠিত জাতীয় ইতিহাস সেমিনারে অংশগ্রহণ।

১৯৭৭-৭৮ ভাইস প্রেসিডেন্ট, আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ইতিহাস সমিতি, ময়মনসিংহ, বাংলাদেশ।

১৯৭৫-৭৬ আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ইতিহাস বিভাগ থেকে মরহুম প্রফেসর ডঃ আগা মেহেদী হুসাইন ইতিহাস-বিষয়ক বৃত্তিপ্রাপ্ত। এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে যে, প্রফেসর হুসাইন মুসলিম উম্মাহ মধ্যে প্রথম মুসলিম যিনি সর্বপ্রথম পিএইচডি ডিগ্রী করেন।

১৯৭৩-৭৪ আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ইতিহাস সেমিনারে প্রথম বর্ষের সম্মানিত শিক্ষার্থী হিসাবে Akbar, the Great Mughal এর ধর্মীয় নীতি সম্পর্কে বক্তৃতা প্রদান।

কোরানিক কর্মশালা

১৯৮৩ বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (BAU) ক্যাম্পাসের প্রতিনিধি হিসাবে জাতীয় অধ্যাপক এবং বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন উপাচার্য প্রফেসর এ. কে. এম. আমিনুল হকের আমন্ত্রণে বাংলাদেশ কোরানিক স্কুল সোসাইটির তত্ত্বাবধানে ঢাকায় তৃতীয় কোরানিক কর্মশালায় অংশগ্রহণ।

এছাড়া BAU ক্যাম্পাস মসজিদে প্রফেসর ডঃ আমিনুল হক উপস্থিতিতে Isra and Miraj, the Miracle Night Journey উপর আমার বক্তৃতা দান।

পবিত্র হজ্ব

২০১৫ আমার স্ত্রী এবং আমি আমেরিকা থেকে মক্কায় পবিত্র হজ্ব পালন করেছিলাম এবং মদিনায় আল-মাজিদ আন-নববী পরিদর্শন করেছি।

বধির ক্রীড়া

২০০৩ সালে ডঃ ববি বেথ স্কোগিনস, ইউনাইটেড স্টেট অফ আমেরিকা ডেফ স্পোর্টস ফেডারেশন (ইউএসএডিএসএফ) – এর তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বধির স্পোর্টসের নব জাগরণ (রেনেসাঁস) সম্পর্কে আমার লেখার প্রশংসা করেছিলেন এবং তাঁর ই-মেইল চিঠিতে আমাকে “Deaflympican” (বধির অলিম্পিয়ান) হিসাবে উল্লেখ করেছিলেন, যদিও আমি ডিফ অলিম্পিক্সে (ডিফ অলিম্পিক গেমস) অংশ নিইনি। এটি আমার কাছে একটি বিরল সম্মান ছিল।

২০০০ সালে ডঃ ববি বেথ স্কোগিনস আমাকে ইউএসএডিএসএফ অ্যাড হক সকার কমিটির সাথে কাজ করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন।

১৯৮৪-৮৫ আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের নর্দান ইলিনয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক আয়োজিত শ্রবণ প্রতিবন্ধী স্পোর্টস টুর্নামেন্টে টেনিস, টেবিল টেনিস, ভলিবল এবং বাস্কেটবলে চ্যাম্পিয়নশীপ অর্জন।

সক্ষম দেহী ক্রীড়া (Able Bodied Sports)

জাতীয় ক্রিকেট

১৯৭৫-৭৬ বাংলাদেশের দ্বিতীয় জাতীয় ক্রিকেট টুর্নামেন্টে ময়মনসিংহ জেলা একাদশের পক্ষে অংশগ্রহণ।

১৯৭৯-৮০ বাংলাদেশের ষষ্ঠ জাতীয় ক্রিকেট টুর্নামেন্টে ময়মনসিংহ জেলা একাদশের হয়ে খেলেছি। আমি জাতীয় ক্রিকেট চ্যাম্পিয়ন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও অংশ গ্রহণকারী টাঙ্গাইল জেলা একাদশের বিরুদ্ধে ময়মনসিংহ জেলা একাদশের পক্ষে সর্বাধিক ব্যাটিং স্কোরার ছিলাম। ময়মনসিংহ জেলা দল ষষ্ঠ জাতীয় ক্রিকেট “বি”জোন চ্যাম্পিয়নশিপে রানার্স-আপ অর্জন করে এবং সেখান থেকেই “বি ” জোন চ্যাম্পিয়ন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় জাতীয় ক্রিকেট চ্যাম্পিয়ন হয়।

১৯৮১-৮২ বাংলাদেশের অষ্টম জাতীয় ক্রিকেট টুর্নামেন্টে ময়মনসিংহ জেলা একাদশের পক্ষে অংশ গ্রহণ।

মহানগর ক্রিকেট (Metropolis Cricket)

১৯৭৩-৮২ ঢাকা প্রথম বিভাগ মহানগরীর ক্রিকেট লীগগুলিতে ঢাকা ওয়ান্ডারার্স, ঢাকা টাউন, ঢাকা ওয়ারী এবং ঢাকা লালমাটিয়া স্পোর্টিং ক্লাবগুলির হয়ে খেলেছি।

জেলা ক্রিকেট (District Cricket)

১৯৭৩-৮২ আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব, ডায়মন্ড স্পোর্টিং ক্লাব এবং শিকল গোষ্ঠী ক্রিকেটার্স পক্ষে ময়মনসিংহের প্রথম বিভাগ জেলা ক্রিকেট লীগগুলিতে অংশগ্রহণ।
১৯৭৩-৭৪ আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ময়মনসিংহ জেলা ক্রীড়া সংস্থার নক আউট ক্রিকেট টুর্নামেন্টে প্রথম চ্যাম্পিয়নশীপ অর্জন করে। পর্দার অন্তরালে সদরুল ব্যাটিংয়ে এবং ইফতু বোলিংয়ে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখান।

কলেজ ক্রিকেট

১৯৭২-৭৩ জেলা আন্তঃ কলেজ চ্যাম্পিয়ন আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের পক্ষে অংশগ্রহণ এবং তদানীন্তন ঢাকা বিভাগীয় আন্তঃ কলেজ ক্রিকেট টুর্নামেন্টে আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের রানার্স-আপ অর্জন।

ক্রিকেট অর্জনসমূহ

১৯৮১-৮২ ঢাকার মেট্রোপলিস ক্রিকেট লীগে দেশের ৩০ জন আউটস্ট্যান্ডিং ব্যাটসম্যানদের মধ্যে লালমাটিয়া ক্রিকেট ক্লাবের পক্ষে ক্রিকেট ব্যাটিং গড়ে নবম স্থান অর্জন।
১৯৭৯-৮০ ময়মনসিংহ জেলা ক্রিকেট লীগে হবস ইলেভেন ক্রিকেটারদের বিপক্ষে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের হয়ে একটি ছক্কাসহ অপরাজিত ৯৪ রান অর্জন । এটাই আমার সর্বোচ্চতম ব্যাটিং রেকর্ড।

১৯৭৯-৮০ ময়মনসিংহ জেলা ক্রীড়া সংস্থার আউটস্ট্যান্ডিং ক্রিকেটার হিসাবে ব্লেজার অর্জন।

১৯৭১-৭২ আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে আউটস্ট্যান্ডিং ক্রিকেটার হিসাবে বিশেষ প্রশংসাপত্র অর্জন।

১৯৭০-৭৬ যথাক্রমে পাকিস্তানের জাতীয় ক্রিকেট কোচ জনাব মাস্টার আজিজ এবং বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেট কোচ জনাব চাঁদ খানের কাছ থেকে ক্রিকেট কোচিংয়ের অভিজ্ঞতা অর্জন করেন।

জাতীয় যুব ফুটবল (Soccer)

১৯৭৩-৭৪ বাংলাদেশের প্রথম জাতীয় যুব ফুটবল টুর্নামেন্টে রানার্স-আপ ময়মনসিংহ জেলা দলের প্রতিনিধিত্ব অর্জন।

১9৭২-৭৩ পন্ডিতপাড়া অ্যাথলেটিক্স ক্লাবের পক্ষে প্রথম বিভাগ Mymensingh District Soccer League (MDSL) এ খেলেছেন।

স্কুল সকার

১৯৬৭-৬৮ ময়মনসিংহ জিলা সরকারী স্কুলের সিনিয়র দলের পক্ষে আন্তঃ স্কুল ফুটবল খেলেছেন।

১৯৬৪-৬৫ ময়মনসিংহ জিলা সরকারী স্কুলের জুনিয়র দলের (লীলাদেবী) পক্ষে আন্তঃ স্কুল ফুটবল খেলেছেন।

সকার কৃতিত্ব

১৯৯৪ ইলিনয়ের অরোরার ডেইলি বেকন-নিউজ- এ গেস্ট কলামিস্ট হিসাবে আমার লেখা “Life and times of World Cup soccer” প্রকাশিত হয়েছিল।

১৯৮৯ ওয়াল ম্যাগাজিন The Sports Mirror প্রকাশিত হয়েছিল এর সম্পাদক হিসাবে অরোরা ফ্যামিলি ওয়াইএমসিএতে।

১৯৮৬-৮৭ অরোরা ফ্যামেলি ওয়াইএমসিতে ফুটবল রেফারি, কোচ এবং সকার অফিসিয়াল হিসাবে কার্য সম্পাদন।

১৯৮৫-৮৬ ইলিনয়ের চ্যাম্পেইন ও উর্বনা পার্ক ডিস্ট্রিক্ট অধীন সকার রেফারি, কোচ ও অফিসিয়াল হিসাবে কর্ম সম্পাদন।

আমার সম্পর্কে পার্ক ডিস্ট্রিক্ট লিখেছেঃ “As a soccer referee, Iftu Ahmed is always reliable. His eagerness and knowledge of the rules over-shadow his hearing disability, as Iftu Ahmed has no problems communicating his calls on the field.”অর্থাৎ “সকার রেফারী হিসাবে ইফতু আহমেদ ছিলেন সবসময় নির্ভরযোগ্য। তাঁর উৎসুক্যতা এবং ফুটবলের নীতিমালার উপর জ্ঞান তাঁর শ্রবণ প্রতিবন্ধকতা ঢেকে দিয়েছিল যা কোন সমস্যা ছিল না মাঠে খেলোয়াড়দের সাথে যোগাযোগের ব্যাপারে।”

১৯৭৩-৭৪ বাংলাদেশের জাতীয় সকার কোচ জনাব নির্মল কুমার নাগের কাছ থেকে সকার কোচিং অভিজ্ঞতা অর্জন।

১৯৭২-৭৩ আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে ফুটবলের পারদর্শিতার জন্য বিশেষ সার্টিফিকেট অর্জন।

অ্যাথলেটিক্স (ট্র্যাক এবং ফিল্ড)

১০০ মিটার স্প্রিন্ট, ১১০ মিটার হার্ডলেস রেস, ৪ X ১০০ মিটার রীলে, জ্যাভেলিন থ্রো, শট পুট, ডিস্কাস থ্রো, পোল ভল্ট, হাই জাম্প এবং লং জাম্প ইত্যাদি আমার ট্র্যাক এবং ফিল্ড ইভেন্ট।

জাতীয় অ্যাথলেটিক্স

১৯৭৩-৭৪ জ্যাভলিন থ্রো এবং শট পুটে প্রথম বাংলাদেশ জাতীয় অ্যাথলেটিক্স ক্রীড়া প্রতিযোগিতাতে ময়মনসিংহ জেলা দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেন। জ্যাভালিন থ্রোতে ৪র্থ স্থান অর্জন।

বিভাগীয় অ্যাথলেটিক্স

১৯৭৯-৮০ ঢাকা বিভাগীয় অ্যাথলেটিক্সে ময়মনসিংহ জেলা দলের পক্ষে অংশ গ্রহণ এবং শট পুটে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন।

ডিস্ট্রিক্ট অ্যাথলেটিক্স

১৯৭২-৭৬ আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের পক্ষে ময়মনসিংহ ডিস্ট্রিক্ট অ্যাথলেটিক্স ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ।

কলেজ অ্যাথলেটিক্স

১৯৭৫-৭৬ আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের বার্ষিক অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়ন।

১৯৭৩-৭৪ আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের বার্ষিক অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়ন।

১৯৭২-৭৩ আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের বার্ষিক অ্যাথলেটিক্স রানার্স-আপ।

১৯৭২-৭৬ জেলা এবং বিভাগীয় কলেজ অ্যাথলেটিক্সের আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের পক্ষে অংশগ্রহণ।

স্কুল অ্যাথলেটিক্স

১৯৬৭-৬৮ ময়মনসিংহ জেলা আন্তঃ স্কুল অ্যাথলেটিক্সে ময়মনসিংহ জেলা স্কুলের প্রতিনিধিত্ব করেন।

বাস্কেটবল

১৯৮৫ ইলিনয়ের চ্যাম্পেইন-উর্বনা পার্ক ডিস্ট্রিক্টের বাস্কেটবল রেফারি হিসাবে কার্য সম্পাদন।

১৯৭০-৭১ ময়মনসিংহ জেলা ক্রীড়া সংস্থার পৃষ্ঠপোষকতায় চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে কম্বাইন্ড কলেজ টিমের পক্ষে রানার্স-আপ অর্জন।

১৯৬৯-৭০ জেলা আন্তঃ স্কুল বাস্কেটবল প্রতিযোগিতায় ময়মনসিংহ জেলা স্কুল দলের অধিনায়কত্ব ও রানার্স-আপ অর্জন।

রেকেটবল

১৯৯০ ইলিনয়ের অরোরা ফ্যামিলি ওয়াইএমসিএতে রেকেটবল খেলেন।

ইয়ুথ এক্টিভিটিস

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় আবাসিক এলাকার ক্যাম্পাসে যুব ফুটবল, ক্রিকেট ও বাস্কেটবল আয়োজন ও পরিচালনার কার্য সম্পাদন এবং এ সম্পর্কে দৈনিক বাংলা ও ইত্তেফাকে প্রতিবেদন লিখন।

ময়মনসিংহের জেলা স্কুলের কাব, স্কাউট এবং মেম্বার ব্যান্ড পার্টি টিম ছাড়াও ময়মনসিংহের খ্যাতিমান যুব সংগঠন মুকুল ফৌজের সদস্য।

স্পোর্টস সেমিনার

১৯৭৬-৭৭ ময়মনসিংহের বাংলাদেশ কাউন্সিলের তত্ত্বাবধানে ক্রীড়া সেমিনারে অংশগ্রহণ এবং “নৈতিক মানদণ্ড ও খেলাধূলা” ক্রীড়া বিষয়ক লিখন পঠন।

ক্রীড়া লেখক সমিতি

১৯৮২-৮৪ প্রতিষ্ঠাতা-সদস্য, বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতি, ময়মনসিংহ।

ক্রীড়া সম্পাদক

১৯৮০-৮২ ময়মনসিংহের সাপ্তাহিক মুখপত্র পত্রিকার সম্মানসূচক স্পোর্টস এডিটরের দায়িত্ব পালন।

ক্রীড়া জীবনী

১৯৭৮ ও ১৯৮০ সালে তদানীন্তন ঢাকার দৈনিক বাংলা ও ময়মনসিংহের সাপ্তাহিক তাকবীর – এ আমার ক্রীড়া জীবনী ফটোসহ প্রকাশিত হয়েছিল। এগুলি ছাড়াও আমার নাম ময়মনসিংহের জেলা পরিষদ কর্তৃক প্রকাশিত ক্রীড়া, সংস্কৃতি ও সাহিত্যের বইয়ে লিপিবদ্ধ আছে।

প্রকাশনা

আমি বাংলা, ইংরেজি উভয় ভাষাতেই ইতিহাস, খেলাধুলা, ব্যবসা-বাণিজ্য, ধর্ম ও প্রতিবন্ধীতার ক্ষেত্রে প্রকাশিত লেখক। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আমার ছাত্রজীবনের সময় আমি ওয়াউবনেসি কমিউনিটি কলেজের পত্রিকা The Insight এর স্টাফ-মেম্বার ছিলাম।

বাংলাদেশের ঢাকার দৈনিক ইংরেজি সংবাদপত্র ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেসের আমার প্রকাশনার লিস্টঃ

2018

.The world soccer’s legend scorers, The world deaf history as it takes shape, The history of soccer.

2017

. Peace cannot be achieved by violating humanity.

2016

. In the run-up to Independence. An easy victory for the Tigers. A classic cricket series. Good luck, Bangladesh Tigers. Bangladesh lost, despite bright moments. Rebooting Olympism in Bangladesh. Welcoming Rio: A pledge to build a new world. Beethoven, a deaf man. Muhammad Ali, the boxing legend. Walton may have gone, Wal-Mart stays on. From your Valentine. Need for a sports university in Bangladesh.

2015

. Performing the Holy Hajj. Australia’s tour of Bangladesh. Eying the Women’s World Cup Soccer. 2015 Indian cricket tour. The Banglawash! A heart-warming victory.Good luck, Bangladesh! Language Movement in perspective. An overwhelming victory. From your Valentine.

2014

. The New Year and Naba Barsha. Ensuring road safety. A prayer for Zaglul. Shakib, Bangladesh is proud of you! Wal-Mart is working for a world free of poverty. Ushering in the football World Cup. Nalanda University Rebirth of a famed seat of learning. In memory of Professor Kazi Fazlur Rahim. Staistics of World Cup goals. World Cup of world cups. The hero of the match. The history of soccer. When the tiger appears, the lamb must give way. Wal-Mart honours Iftu Ahmed. Sri Lanka: Unbeaten champions. Afghanistan’s moment of glory. Bangladesh must get its acts together. The cricket history of Mymensingh.

2013

. History is the mirror of a nation. Modern period owes its roots to transition of Renaissance. The evolution of Prime Ministership. The discourse over two terms for a PM. Fighting poverty and the two-term imit. Of poverty reduction and political reforms. Helen Adams Keller: The world’s wonder! Time has come to care the hearing impaired. Simanaheen a teardrop of Hindu-Muslim love. Ensuring safety standards in workplaces. In memory of Illias Uddin Ahmed a sports legend. Good health necessary for sound mind. Good job of Bangladesh Cricket Team. The second Test match against Sri Lanka. Easy victory for Sri Lanka. Rain-wet sweet victory. Well played, Bangladesh. Hats off to Bangladesh team. Thanks Tigers. Bangladesh pitted against New Zealand. Well played Bangladesh!

2012

. Parliament is the place for lasting peace. Jute and the denim dream of Bangladesh. History of disabled Olympians. Save BNFD asset. ‘’Simanaheen,” the second Bangla movie in US. Disabled athletes in Olympic Games: Cheetah flex-foot. In memory of Shahid Shahed Ali. The Olympic medal ranking systems. Mymensingh deserves to be venue of national and international sports. Tidbits of Summer Olympiad. WB and Bangladesh wrangle. The cochlear war and the deaf community. Mehedi Hasan will never die. Why BRICS proposes an alternative to the World Bank, May 25, 2012. Asia Cup and Bangladesh. WB and IMF need reforms. Taking Special care of the deaf and blind. Amartya Sen’s accounts of Bangladesh. The WFD and Bangladesh.

2011

. Shakib deserve kudos. I Love You (ILY) sign, December. Taj Mahal: A teardrop on the check of time. “Kings of Devon,” first Bangla movie in US.  Sunny, the rising star. Is a deaf athlete disabled athlete? Inspiring the tiger. Pataudi, the immortal cricketer. Need for a sports university in Bangladesh. A friend of the people with disabilities. Subtitle TV shows for deaf people. Philosophy of the Holy Prophet in good governance. Kudos to Japan’s women soccer team. BISS can give fillip to sports in Bangladesh. Able and disabled both struggle for peace. One day Tigers will play quarterfinals in the Cricket World Cup. Why not golden bat, ball awards in cricket? A fantastic victory! Iranian warships enter Suez Canal amid Israel concern. Civilian award has no boundary. World Cup cricket no more a dream of Bangladesh.

2010

. Selecting priorities wisely. World Cup cricket at a glance. Discrimination on grounds of race, colour and disabilities is wrong. Support Services for the disabled. The UNESCO PES Prize. FIFA’s golden ball, boot and glove. England’s strength and the luck of US. World Cup and Bangladesh. World Cup soccer at a glance. Customer and consumer. Hazrat Shahjalal , the Sufi saint. Spreading the Gallaudet approach to nourish the latent talent of the deaf. From your Valentine. A day for Bangla Sign Language. A brief history of disability sports.

2009

. Soccer, the association football of England. The New Year’s Day. Comprehensive action plan needed to save the planet. Herodotus, the father of history. Obama has the power to contribute to peace. Three YMCA Nobel laureates. A dynamic sports policy for Bangladesh. The three deaf Nobel laureates. Deaf history of Bangladesh. For ending discrimination against the disabled. Muslim contribution to civilization. A moment of cricket history for Bangladesh. Goals of YMCA. Traveler’s accounts of Banglsdesh still true. Europe’s splendour, Asia’s intellect. Pahela Boishaks, the Bangla New Year’s Day. Language movement in perspective.

2008

. Deaf sports, world’s fastest growing sports. The War of Independence of Bangladesh. Evolution of deaf welfare. Bangladesh needs to follow Brazil to develop its soccer skills. Natalie, the first disabled Olympian. A salute to XXIX Olympiad. Deaf football becomes global event, Bangladesh neglects it. ‘Handicaps exist only in the mind.’ Making BKSP a center of excellence. In memory of Illias Uddin Ahmed, a sports legend. Revamping Bangladesh sports awards policy. Sam Walton (1918-1992), the missing laureate. A separate ministry for the impaired.

ওয়াল-মার্টের প্রকাশনা, পৃথিবীর বৃহত্তম সংস্থা

. Wal-Mart is working for a world free of poverty, The Financial Express, October o4, 2014.

. Sam Walton (1918-1992), the missing laureate, The Financial Express, Dhaka, April 10, 2008.

. Wal-Mart’s Architect Samuel Moore Walton (1918-1992), The Thikana, Sept. 3, 2005.
. Sam Walton may be gone, but Wal-Mart stays on rise, The Beacon-News, June 13, 1995.
. Wal-Mart family earns new round of recognition, The Beacon-News, April 23, 1993.
. Satisfaction to customers Wal-Mart’s philosophy, The Beacon-News, January 22, 1993.

এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে যে, ১৯৯৩ সালে ওয়াল-মার্টের সমালোচকরা ওয়াল-মার্টের সমালোচনা করতে শুরু করেন। সে সময় আমি ওয়াল-মার্টের সহযোগী (Associate) হিসাবে ওয়াল-মার্টের সমর্থনে আমার স্থানীয় The Beacon-News পত্রিকায় লিখলামঃ “Satisfaction to customers Wal-Mart’s philosophy”। লেখাটি তৎকালীন ওয়াল-মার্ট President and CEO ডেভিড গ্লাস এতই মুগ্ধ হয়েছিলেন যে, তিনি আমাকে লিখলেনঃ “It was both comforting and reassuring to know how fortunate we are to have such outstanding friends. Words cannot express my appreciation for your kind and generous expression of support.” অর্থাৎ “এটা সান্ত্বনা ও আশ্বাস উভয়ই দিচ্ছিলো আমরা কত ভাগ্যবান এরূপ অসামান্য বন্ধুদের পেয়ে। আপনার দয়ালু ও উদার সমর্থন শব্দগুলি আমার প্রশংসা প্রকাশ করতে পারেনা।”

ওয়াল-মার্টি বাইসাইকেল প্রজেক্ট লেখাসমূহ

2013 The Wal-Mart Assembling World.
2009 Wal-Mart Full Service Bicycle Department.
2005 How to execute Summer Bike Modular.
2004 Wal-Mart Performance Appraisal: Bicycle Assembler and Repairer.
2002 How to overcome Summer Bike Market.
2001 Shrinkage Prevention and Bicycle Business.
2000 Bicycle Business of Wal-Mart.
1993 Thoughts on Motion Center.
আঞ্চলিক শ্রেষ্ঠত্বের পুরস্কার (Regional Award of Excellence)

১৯৯৭ ওয়াল-মার্ট আঞ্চলিক শ্রেষ্ঠত্বের পুরস্কার অর্জন।

The Wal-Mart Today

১৯৯৭ সালে The Wal-Mart Today ছবিসহ আমার সাকসেসফুল স্টোরী প্রকাশ করেছে। অধুনা এটা Wal-Mart World নাম পরিচিত।

ওয়াল-মার্ট ডিস্ট্রিক্ট বার্ষিক মধ্যাহ্নভোজ

২০১০ ওয়াল-মার্টের অবদান সম্পর্কে বক্তৃতা প্রদান করেন।

২০০৯ ওয়াল-মার্টের অবদান সম্পর্কে বক্তৃতা প্রদান করেন।

ওয়াল-মার্ট রিবন কাটিং সম্মান

২০১৪ সালে ওয়াল-মার্ট আমাকে নেপারভিলে একটি সুপার ওয়াল-মার্ট উদ্বোধন ও রিবন কাটিং এর বিরল দিয়েছে সম্মান।

প্রকাশনা The Daily Beacon-News, Aurora, IL, USA

. Deafness can’t hold us back from greatness, June 26, 2010.

. World Cup has exciting history, June 9, 2010.

. Rebuild with soccer, October 13, 2003.

. Cricket: a sport whose time has come, December 26, 2002.

. Education, jobs should guide in Asia, not favor of family, August 31, 1996.

. Sam Walton may be gone, but Wal-Mart stays on rise, June 13, 1995.

. Monuments, the assets of history that deserve to be preserved, May 16, 1995.

. Modern period owes its root to transition of Renaissance, May 31, 1995.

. Modern period owes its root to transition of Renaissance, May 31, 1995.
. Life and times of World Cup soccer, June 12, 1994.

. New Post Office stamp gift for hearing impaired, January 1, 1994.

. Wal-Mart family earns new round of recognition, The Beacon-News, April 23, 1993

. Satisfaction to customers Wal-Mart’s philosophy, The Beacon-News, January 22, 1993.

. Consciousness of history important for world now, The Beacon-News, June 9, 1992.

. World Cup soccer bound for United States in 1994, May 16, 1992.

. YMCA can fuel return of U.S. in world cricket, April 20 1992.

. Europe’s splendor fine, but intellectual born in Asia,, The Beacon-News, March 18, 1992.

. Sports and games indeed necessary to sound mind, September 3, 1991.

. Role of language seems a significant factor in unity, August, 10, 1991.

. Alexander the Great did not measure up to name, July 2, 1991.

. Traveler’s aged portrait of Bangladesh is still true, May 31, 1991.

প্রকাশনা The Insight, the Newspaper of Waubonsee Community College, IL, USA

. Basketball: In the light of statistics, April 14, 1986.
. Recognition toward men and women of courage, March 31, 1986.

. Life of a soccer referee, March 16, 1986.

. A fight for Bengali, March 31, 1986.

. Health is wealth, February 24, 1986.

. Thoughts on Sports, February 10, 1986.

. Alexander the Great champ or chump? January 27, 1986.

বাংলা প্রকাশনা

. যুগে যুগে প্রতিভাবান প্রতিবন্ধী ব্যক্তি (Talented disabled people throughout the ages), The Oporajey, Bangladesh, January 24, 2016.

. ইতিহাসের কিছু কথা (Something about history), Amader Somoy, Bangladesh, September 13, 2014.

. শ্রবণ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিবর্গের সমস্যা সমাধানে কিছু পরামর্শ (Some tips to solve the problem of hearing impaired people), The Oporajey, March, 2013.

. মদিনার সনদ প্রথম আন্তর্জাতিক সন্ধিপত্র (The Charter of Medina is the first international treaty), Amader Somoy, April 17, 2013.

. দুই মেয়াদি শাসনব্যবস্থা (Two-term governance), Amader Somoy March 18, 2013.

. পবিত্র কোরআন ও প্রতিবন্ধী (The holy Quran and the disabled) ,Amader Somoy, September 16, 2012 .

. প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সমস্যা সমাধানে কিছু পরামর্শ (Some tips to solve the problem of hearing impaired people), The Thikana, New York, Sept. 15, 2006.
. স্বাধীনতার ধন আনলো বয়ে (Brought the treasure of freedom) The Thikana, March 11, 2005.

. ডঃ হার্টের দর্শনের আলোকে নবীজি হজরত মুহম্মদ (সঃ) (In the light of Dr. Hart’s philosophy, the Prophet Muhammad peace be upon him), The Thikana, June 11, 2004.

. ফুটবল ও বিশ্বকাপ (Soccer and the World Cup), The Daily Inqilab, Dhaka, Bangladesh, 1994.

. বাস্কেটবল খেলার আবিষ্কার (The invention of the game of basketball), The Daily Ittefaq,Dhaka, Bangladesh, 1986.

. আমেরিকার খেলাধূলার জগতে ওয়াইএমসির ভূমিকা (The role of YMCA in the American sports world), The Daily Ittefaq, 1985.

. আমেরিকার খেলাধূলা কিছু অভিজ্ঞতা (Some experiences in American sports), The Daily Ittefaq, October 25, 1985.

. আমেরিকাতে খেলাধূলা (Sports in America), The Daily Ittefaq, 1985.

. বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ক্রীড়া কমপ্লেক্স (Bangladesh Agricultural University Sports Complex)|, The Daily Ittefaq, June 1, 1984.

. হুদায়বিয়ার সন্ধি (The treaty of Hudaibiya), The Jahan, Mymensingh, Bangladesh, February 25, 1984.

. ক্যাবিনেট প্রথার ইতিকথা (A brief history of Cabinet Practice), The Jahan, January 30, 1984.

. আসন্ন সাউথ-ইস্ট এশিয়ান ক্রিকেটে বাংলাদেশের সম্ভাব্যতা (Bangladesh’s potential in the upcoming South-East Asian cricket , The Daily Ittefaq, January 7, 1984.

. প্রসঙ্গঃ সকার রেফারিং (Context: Soccer referencing), The Daily Ittefaq, July 30, 1983.

. বাংলাদেশ জাতীয় ক্রীড়ানীতি কিছু সুপারিশ (Some recommendations of Bangladesh National Sports Policy), The Daily Ittefaq, July 20, 1983.

. ক্রিকেট প্রেমিকদের চোখে বিশ্বকাপ ক্রিকেট (Cricket World Cup in the eyes of cricket lovers), The Daily Ittefaq, July 2, 1983.

. এথলেটিক্স ক্রীড়ার রাঙ্কিং পদ্ধতি (Ranking system of athletics sports), The Daily Ittefaq, June 11, 1983.

. খেলাধূলা (Sports), The Daily Ittefaq, April 23, 1983.

. প্যালেসটাইনের ইতিহাস (History of Palestine}, The Jahan, April 2, 1983.

. ভারতের প্রথম রাংলার আনন্দ মোহন বসু (Ananda Mohan Basu, the first wrangler of India|, The Banglar Darpan, Mymensingh, Bangladesh, June 23, 1982.

. সুলতানা রাজিয়া (Sultana Raziya), The Takbeer, Mymensingh, Bangladesh, May 7, 1982.

. সুলতান ইলতুৎমিশের স্থাপত্য শিল্পের গৌরব (The glory of Sultan Iltutmish’s architecture), The Takbeer, December 11, 1981.

. আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয় গেমস (International University Games), The Mukhapatra, Mymensingh, Bangladesh, July 22, 1981.

. অস্ট্রিয়ার রাজা দ্বিতীয় জোসেফ ও ভারতের সুলতান মুহম্মদ বিন তুঘলক (Joseph II, the King of Austria and Mohammad Bin Tughluq, the Sultan of India), The Mukhapatra, July 22, 1981.

. ময়মনসিংহে স্পোর্টস কমপ্লেক্স (Sports complex in Mymensingh), The Daily Ittefaq, July 19, 1981.

. বিশ্ব এথলেটিক্সে আমরা কোথায়? (Where are we in world’s athletics?), The Daily Azad, Dhaka, Bangladesh, June 3, 1981.

. স্থাপত্যশিল্পের আলোকে কোয়াত-উল-ইসলাম মসজিদ (Quwwat-ul-Isalm mosque), in the light of architecture, The Mukhapatra, March 27, 1981.

. ১৯৮০ আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় ফুটবল (1980 Inter University soccer ), The Daily Ittefaq, December 21, 1980.

. কারবালার স্মৃতি (Memories of Karbala), The Mukhapatra, November 14, 1980.

. স্থাপত্যশিল্পের ইতিহাসে মানডু (Mandu in the history of architecture), The Mukhapatra, October 10, 1980.

. আকবরের সমাধি সৌধ (Akbar’s Mausoleum), The Takbeer, August 12, 1980.

. শেরশাহ শুরের সমাধি সৌধ (Sher Shah Sur’s Mausoleum), The Takbeer, May 30, 1980.

. ইৎমাদ-উদ-দৌলাহর সমাধি সৌধ (I’timad-ud-Daula’s Masuoleum), The Takbeer, June 30, 1980.
. ইতিহাস একটি জাতির দর্পণ (History is the mirror of a nation), The Takbeer, April 4, 1980.

. তাজমহলের স্থাপত্য সৌন্দর্য (The architectural beauty of Taj Mahall), The Takbeer, January 25, 1980.

. ভারতে মুসলিম স্থাপত্যশিল্প (Muslim architecture in India), The Takbeer, December 21, 1979.

. জুনিয়র ফুটবললীগ (Junior soccer league|, The Daily Ittefaq, September 9, 1979.

জুনিয়র বাস্কেটবল লীগ (Junior basketball league), The Daily Ittefaq ,
1979.

. ময়মনসিংহে বাস্কেটবল (Basketball in Mymensingh), The Daily Ittefaq, July 22,
1979.

. খেলাধূলা শিক্ষার অপরিহার্য অঙ্গ (Sports and games are an essential element of education), The Daily Dainik Bangla, Dhaka, Nov. 22, 1975.

. খেলাধূলা কিছু ভাবনা (Some thoughts on sports), The Daily Dainik Bangla, Novemeber 21, 1973.

. ফুটবলের কিম্বদন্তী পেলে (Pele, the soccer legend), The Dainik Bangla, March 11, 1973.

স্যুভেনির (Souvnir)

. Some memorable records, South-East Asian Cricket Souvenir, January 16-17, 1984.

পরিবার

ইফতু আহমেদ দুই সন্তানের জনক। বড় ছেলে আদীব আহমেদ ও ছোট ছেলে এন্টোয়ান আহমেদ এবং ওরা দুজনই শিকাগোর Institute of Illinois Technology (IIT) এর গ্রাজুয়েট।

আদীব কম্পিউটার সাইন্সে এবং মিনেসোটায় সিনিয়র সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে কর্মরত। এন্টোয়ান মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এ এবং প্রজেক্ট ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে শিকাগোতে কর্মরত। ওদের মরহুম নানা ভাই মুজিবুর রহমান ছিলেন চিটাগাং জাজ কোর্টের একজন এডভোকেট ও চিটাগাং ল’ কলেজের প্রফেসর।

সহধর্মিনী সাবিনা আহমেদ নিপু চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বি.এ., বি.এড। ওর মাতৃকূল প্রৌপিতামহ (নানা) ছিলেন চেওড়া কাজী বাড়ীর একজন কাজী।

সাবিনা স্থানীয় অরোরায় চাইল্ড কেয়ার টিচার হিসাবে কর্মরত।

আমার জীবনকে দু’ভাগে ভাগ করা যায়। প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের জীবন। সে নিরিখে ৩০ বছর কাটিয়েছি জন্মভূমি বাংলাদেশে এবং বাকী ৩৫ বছরের অধিক চলছে এই মার্কিন মুল্লুকে। প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের নানান অভিজ্ঞতার মিলনসেতু হয়েছি আমি। ইতিহাসের জনক হেরোডোটাস নই, তবে ইতিহাসের উপর পড়াশুনা করেছি। তাই হেরোডোটাসের মত কালের স্বাক্ষী হয়ে পারিপার্শ্বিক জীবন অভিজ্ঞতা লিখেছি।

তারিখঃ ০৬/০৯/২০