ভারতের কোভিড-১৯ টিকা অভিযান ১৬ জানুয়ারি থেকে শুরু : সরকার

ভারত ১৬ জানুয়ারি বহুল প্রত্যাশিত কোভিড-১৯ টিকাদান শুরু করতে যাচ্ছে। এ প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দেশের করোনভাইরাস পরিস্থিতি এবং টিকা দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি পর্যালোচনা করেছেন।
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আজ একটি উচ্চ-পর্যায়ের বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন। এরপর সরকারি এক ঘোষণায় বলা হয়, লোহরি, মকর সংক্রান্তি, পঙ্গাল ও মাঘ বিহুসহ আসন্ন উৎসবগুলোর পরে ১৬ জানুয়ারি, ২০২১ টিকাদান অভিযান শুরু করা হবে।
‘১৬ জানুয়ারি ভারত কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এক যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিয়েছে। সেদিনের শুরুতেই ভারতব্যাপী টিকাদান অভিযান শুরু’ হবে বলে সরকারের ঘোষণার কয়েক মিনিট পর মোদি টুইট করেন।
এই টিকাটি চালু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দেশের প্রায় ৩ কোটি স্বাস্থ্যসেবা কর্মী এবং প্রথম সারির কর্মীরা টিকা গ্রহণে অগ্রাধিকার পাবেন।
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সূত্র জানায়, ৫০ বছরের বেশি এবং একটি বা দুটি রোগ রয়েছে এমন ৫০-এর কম বয়সী জনসংখ্যা প্রায় ২৭ কোটি।
ভারত এখন পর্যন্ত দেশব্যাপী কোভিড-১৯ টিকার দুটি পরীক্ষা পরিচালনা করেছে। প্রথম পরীক্ষাটি ২ জানুয়ারি ১২৫টি জেলার ২৮৬ স্থানে অনুষ্ঠিত হয়েছে এবং দ্বিতীয় পর্যায়ে ৮ জানুয়ারি দেশের ৩৩টি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল (ইউটি)-এর ৭৩৬টি জেলায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।
ইতোমধ্যে, ভারতের ওষুধ নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ ৩ জানুয়ারি সিরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া (এসআইআই) এবং ভারত বায়োটেক উৎপাদিত ‘কোভিশিল্ড’ এবং ‘কোভ্যাক্সিন’ নামক দুটি করোনভাইরাস টিকা ‘সংরক্ষিত জরুরি ব্যবহার’-এর অনুমোদন দিয়েছে।