অনেক বড় বড় চিকিৎসাই মানুষের নিজের হাতেঃ এম আই প্রধান

জানা ছিলনা, অনেক বড় বড় চিকিৎসাই মানুষের নিজের হাতে থাকে।আমাদের চলাফেরা,খাবার-দাবার বা লাইফ স্টাইলের অনিয়মের কারনেই বেশিরভাগ বড় বড় বিপদ আমরা নিজেরাই ডেকে আনি সেটি আমরা বেশিরভাগ মানুষই খেয়াল করিনা।আর শরীরের অসুখের মতো বড় বিপদ যে আমাদের আর হয়না সেটাও আমরা গুরুত্ব দেইনা।

গত বেশ কিছুদিন শ্বাসকষ্ট,অস্থিরতা,দ্রুত হাপিয়ে যাওয়া সহ নানা সমস্যায় ছিলাম।বঙ্গবন্ধু’তে গিয়ে পুরো বডি টেস্ট করালাম।শরীরে কলেস্টেরলের মাত্রা বৃদ্ধি,LDL,WBC সহ নানা সমস্যা দেখা দিয়েছে। ডাক্তারের কাছে যাবার সময়ও বের করতে পারছিলাম না।এদিকে শারীরিকভাবে শুয়ে,বসে বা অফিসের কাজে কোনভাবেই শান্তি পাচ্ছিলাম না।

শেষমেশ গত পরশুদিন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর এবিএম খুরশিদ আলম স্যারের কাছেই গেলাম।আমি জানতাম স্যার দেশের সবচেয়ে সেরা চিকিৎসকদের একজন এবং দেশের শ্রেষ্ঠ সার্জন।
স্যারের রুমে যাওয়ামাত্রই স্যার সবার থেকে উঠে এসে আমার কাছে বসলেন।অতি আপনজনের মতো তাঁর পাশে বসিয়ে খুটিয়ে খুটিয়ে আমাকে ও আমার রিপোর্টগুলি দেখলেন।এত চমৎকার করে পুরো ব্যাপারটি ব্যাখ্যা করে বুঝিয়ে দিলেন যে মনের সকল চিন্তা শেষ হয়ে গেল।

স্যার লিখলেন মাত্র দু’টি ওষুধ। দিলেন লাখ টাকা দামী কমন তিনটি উপদেশ, যেগুলি আমরা সবাই জানি কিন্তু মেনে চলিনা।
১) প্রতিদিনই সকাল-সন্ধ্যা হাটাসহ শারিরীক ব্যয়াম করতে হবে।এর কোন বিকল্প নেই।
২) ভাত একেবারে কম খেয়ে সবজি ও ফ্রুটস বেশি খেতে হবে।
৩) সময় মতো ঘুমাতে হবে।

আমি গত দুদিন স্যারের কথামতো কাজ করলাম।আজ সকালে ব্যায়াম করে এসে শাওয়ার নেবার পর মনে হচ্ছিল পৃথিবীর সব সুখ সম্ভবত সুস্থ থাকাতেই।

লেখকঃ এম আই প্রধান, পাবলিক রিলেশন অফিসার, মাননীয় মন্ত্রী, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়।

তারিখঃ ১১/০১/২০২১