একটা দিন চাই আমারঃ কবি মুহাম্মাদ আব্দুল লতিফ

একটা দিন চাই আমার

লিখেছেন কবি মুহাম্মাদ আব্দুল লতিফ

একটা দিন চাই আমার, পুরু একটা দিন
ভালবাসা নবায়ন করবো বলে
যদি কালকের দিনটা আমাদের হয়
যদি সকল কাজ, সকল দায়বদ্ধতা পায় ছুটি
শুধু একটি দিনের জন্য।
যদি কাল সকালের চা টা দুজন মিলে করি?
এই যেমন, তুমি পানি গরম করলে
আর আমি চিনি, চা পাতা তার সাথে
তোমার পছন্দমত এলাচ কিংবা দারুচিনি ছেড়ে দিলাম।
আচ্ছা, যদি নাস্তার প্লেট সাজানোর কাজটা তুমি কর
ডিম আর আলু ভাজিটা না হয় আমিই করলাম।
যদি রুটিগুলো তুমি ছেকে দাও
আমি না হয় যত্ন করে বেলে দিলাম।
চলো, কাল আমরা গঞ্জের ধারে ঘুরতে যাই
ঐ যে, যেখানটায় নদী চলে, নৌকা চলে
গাঁয়ের বধুর আঁচল চলে ঢেউয়ের জলে।
চলো, কাল সারাদিন পথিক হবো, ক্লান্ত হলে
গাছের ছায়ায় একটু না হয় জিরিয়ে নিলাম,
ক্ষুধা পেলে, চিন্তা কেন?
টং দোকানের বাঁশের মাচায়
পোক্ত করে আসন নেবো
চায়ের সাথে লাঠি বিস্কুট একটু না হয় খেয়ে নিলাম ।
সারাদিনের ছুটাছুটি, ঘুরাঘুরি,
অনেক স্মৃতির পুরানো খেলায় নতুন করে সঙ্গী হয়ে
কাটিয়ে দিয়ে সবটা বেলা
ফিরবো কিন্ত বিকেল হলে, মিলিয়ে নিও।
কাল। সাঁজবেলাটা তোমার হবে
অনেক দিনের বকেয়া সাঁজ
সাঁজবেই কিন্তু দিব্যি দিলাম,
আমি না হয় শাড়ির কুঁচি
একটু একটু মিলিয়ে দিলাম।
পিঠের কাছের অধরা হুক দুহাত দিয়ে
না হয় একটু যত্ন করেই লাগিয়ে দিলাম।
শাড়ির প্যাঁচে হারিয়ে যাওয়া
কালকে না হয় মেনেই নিলে
লাজের মায়ায়, চোখের পাতায়
একটু না হয় হারিয়েই গেলাম।
একটু সময় বাকী রেখো, রাখবেই কিন্তু কিছু সময়
চুলের গন্ধে মুগ্ধ হবো, তোমার অমন কেশের মায়ায়।
সারাটা দিন তোমার রবো, রবোই রবো
খুনসুটিতে ভরিয়ে দেবো
অকারণের কারণ হয়ে, তোমার দেহের স্পর্শ নেবো
তুমি না মুচকি হেসে, ধৈর্য্যটাকে বাড়িয়ে নিলে
একটাইতো দিন, তারপর না হয়
আবার আমরা পুরান হলেম ।