১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট পরবর্তী অধ্যাপক ডাঃ এহ্সানুল কবির জগলুল এবং তাহার নৈতিকতা।

বিডিনিউজ এক্সপ্রেসঃ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহপরিবারে ঘাতকের গুলিতে শাহাদাত বরণের পরে তৎকালীন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের ছাত্রলীগ সভাপতি অধ্যাপক ডাঃ এহ্সানুল কবির জগলুল তার নেতা কর্মীদের নিয়ে জাতীয় শহীদ মিনারের দিকে প্রথম প্রতিবাদ মিছিল বের করেন এবং তিনি ঘাতকদের দোসরদের আক্রমণের স্বীকার হন।  

৭৫ পরবর্তী সামরিক সরকার অধ্যাপক ডাঃ এহ্সানুল করির জগলুলকে  প্রস্তাব দেন তাদের সাথে একাত্মতা গ্রহন করার এবং তারা বলেন “হয় প্রস্তাব গ্রহণ তানাহলে দেশ ত্যাগ”। কিন্তু অধ্যাপক ডাঃ এহ্সানুল করির জগলুল সরকারের লোভনীয় প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে বঙ্গবন্ধুর বিশ্বস্ত ভ্যানগার্ড হিসেবে মধ্যপ্রাচ্যে পারিজমান তবুও মাথানত করে বিশ্বাস এবং নৈতিকতা বিসর্জন দেননি তিনি।

জীবনের সোনালি ১২ বছর কাটিয়ে দেন মধ্যপ্রাচ্যে। নেতা এবং দলের প্রতি মানুষের এই ভালোবাসা এবং আনুগত্য সত্যিই ঐতিহাসিক।

এই এই আগস্টেই আবার অধ্যাপক জগলুল এর বাল্য কালের প্রিয় মানুষ শেখ কামালের জন্মদিন।  অধ্যাপক জগলুল বঙ্গবন্ধু পুত্র ক্রিয়া অনুরাগী ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শেখ কামাল এর সাথে কাধে কাধ মিলিয়ে ধানমন্ডির আবাহনী ক্লাব তৈরি করেছিলেন।  এই মাসেই সপরিবারে হত্যা করা হয় বঙ্গবন্ধুকে, অধ্যাপক ডাঃ এহ্সানুল কবির জগলুল এর এই শোক আরও প্রখর হয়ে উঠে শেখ কামালের জন্মদিনে।

তারিখঃ ১৬/০৮/২২/এ আর