শুভ নববর্ষ ১৪২৮: কবি মুহাম্মাদ আব্দুল লতিফ

শুভ নববর্ষ ১৪২৮ লিখেছেন

কবি মুহাম্মাদ আব্দুল লতিফ

খুব সাদামাটা ধরনের শুভেচ্ছা
লাল ফিতে, চুরি, আলতা কিংবা পুতির মালা
এমনকি খোঁপায় পরার জন্য
ছোট্ট এক ঝুড়ি বেলীফুল পর্যন্ত দেওয়া হয়নি।
কেমন হবে এবারের বৈশাখ?
স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছি
হাত ভর্তি কাচের চুড়ি নেই,
কানে দুলানো মাটির দুল নেই
তোমার অমন সরু নাক!
তার এমন শূন্যতা মানায় বলো?
এদিকে খোঁপাবিহীন লম্বা চুলগুলো
মালিকবিহীন এলোমেলো দুলছে অযত্নে।
আচ্ছা বলোতো, বৈশাখে কপালে টিপ ছাড়া
তুমি কবে কোনদিন এসেছো?
এইদিনটিতে কপালের মস্ত টিপ দেখবো বলে
কত যে প্রতীক্ষায় থাকতাম!
কখন আসবে তুমি
বৈশাখী বায়ের সাথে আঁচল উড়িয়ে
কিংবা উড়তে থাকা উড়না সামলানোর
ব্যর্থ চেষ্টায় ব্যস্ত থাকতে থাকতে।
তোমার সব সৌন্দর্য্য
একসাত্থে নিতে পারতামনা আমি
সে সাধ্যও আমার হয়নি কখনো,
বিশ্বাস করো, তোমার ঐ সর্বনাশা কপাল
আর তার অধিকারে থাকা মস্ত লাল টিপ
বাকী সৌন্দর্য্য অবলোকনে
দীর্ঘ বিলম্বের কারণ হয়েছে প্রতিবার।
তোমার আগমন আমাকে স্তব্দ করে দিতো
তোমার পায়ের পতন এমন হতো যে
চৈত্র শেষের খড়খড়া মাটিও
সামান্যতম টের পেতোনা যেন,
তোমার নূপুর এমন শব্দে বাঁজতো
যেন পথে পড়া শুকনো পাতার শব্দকে
অনেক কষ্টে হার মানাতে পারতো,
এতে বরং আমার সুবিধাই হতো
তুমি কাছে আসার মুহূর্ত পর্যন্ত
পায়ের সৌন্দর্য্যে ভাগ বসাতে হতোনা।
এবারের বৈশাখ, সাদামাটা বৈশাখ
পৃথিবীর লক্ষ কোটি প্রেমিক প্রেমিকার মতো
আমাদের বৈশাখও না হয় সাদামাটাই হলো
আমরা না হয় সব জমিয়ে রাখলাম
ঠিক পরের বারের জন্য।
আমি বকুল ফুল ছুঁয়ে কথা দিচ্ছি
পাতার বাশি ছুঁয়ে কথা দিচ্ছি
আমি তোমার লাল টিপ ছুঁয়ে কথা দিচ্ছি
আগামি বৈশাখে মাটির দুল
আর পুতির মালায় তোমাকে সাঁজাবৌই
তুমি দেখে নিও
লাল মাল্যের প্রতিটা পুতি
তোমার সাথে পাল্লা দিয়ে হাঁসবে।
এবারের বৈশাখ সাদামাটাই হোক।

তারিখঃ ১৪/০৪/২১